পাবনায় পুষ্পপায়ার স্বামীকে মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

পাবনায় রাজমিস্ত্রী আবুল কালামকে অস্ত্র মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদে তার স্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে স্বামীর মুক্তি দাবী করেছেন। রোববার দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাব মিলানায়তনে সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে স্ত্রী শিরিনা খাতুন লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার স্বামী পাবনার আতাইকুলা থানার ধর্মগ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে রাজমিস্ত্রি আবুল কালামকে একদল সন্ত্রাসী বাড়ী থেকে ধরে নিয়ে এসে পুষ্পপাড়া বাজারের উপর মারপিট করে। পরে প্রকাশ্যে লোকজনের সামনে অস্ত্র দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, তাঁর স্বামী আবুল কালাম রাজমিস্ত্রির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। তাঁর নামে ইতোপুর্বের কোন মামলা নাই। সংবাদ সম্মেলনে শিরিনা খাতুন অভিযোগ করেন, ঘটনার দিন গত ২১ জানুয়ারি কাজ না থাকায় আমার স্বামী বাড়ীতে বিশ্রামে ছিলেন। হঠাৎ করে বিকাল ৩টার দিকে স্থানীয় কথিত কালে কালাম বাহীনির সদস্য  নাঈম ও রুমন নামের দুই যুবক বাড়ীর মধ্যে ঢুকে আমার স্বামী আবুল কালামকে জোরপূর্বক টেনে-হেছড়ে বাইরে নিয়ে রড দিয়ে মারতে মারতে পুস্পপাড়া হাটের মধ্যে নিয়ে যায়। বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা আমার মাথায় ও মুখে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে আমি আহত হই।

পুস্পপাড়া হাটের মধ্যে প্রকাশ্যে লোকজনের সামনে কালে কালাম মারপিট করে গুলিসহ একটি বন্দুক আমার স্বামীর কাছে দিয়ে ছবি তুলে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে স্বামীকে থানায় নিয়ে যায়। পরে সন্ত্রাসীদের সাজানো ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মিথ্যা অস্ত্র মামলা দিয়ে আমার স্বামীকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন। আতাইকুলা থানার মামলা নং-০৫, তাং ২১/০১/২০২০ ইং।

শিরিনা খাতুন আরো অভিযোগ করেন, তিনি বাদি হয়ে আতাইকুলা থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয় নাই। ফলে বাধ্য হয়ে পাবনার আমলী আদালত-৫ এ একটি মামলা দায়ের করেছেন। পিটিশন মামলা নং-৫, তাং ২৩/০১/২০২০ ইং। সংবাদ সম্মেলনে স্ত্রী শিরিনা খাতুন তার স্বামীর নামে মিথ্যা ও সাজানো মামলার প্রতিবাদ জানিয়ে  তদন্ত সাপেক্ষে সুষ্ঠ বিচার দাবী করেন। সংবাদ সম্মেলনে রাজমিস্ত্রী আবুল কালামের সন্তানসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *