পাবনায় মুজিব বর্ষের কর্মসুচিতে সন্ত্রাসী হামলা

পাবনায় মুজিব বর্ষের কর্মসুচিতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা কর্মিসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও সাদীপুর ইউপি মেম্বর জহুরুল ইসলাম (৪৫) এর অবস্থা আশংকাজনক। তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার রাতে পাবনা শহরতলীর বাংলাবাজার এলাকার হাউসিপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে পাবনা শহরতলীর বাংলাবাজার এলাকার হাউসপাড়ায় আওয়ামীলীগের অস্থায়ী অফিসে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীর একটি কর্মসুচি চলছিল। এ সময় আলী হোসেন, ফরিদ, ছানাই, রহমান মোল্লা, ফারুক, ইয়ারুল, আলামিন, রইজুল, সাগর, বাবু, পলাশ, বিহারী বাবু, আশরাফ মোল্লা, আজিত মোল্লা, রনি, জুয়েল শেখ, রিপন, শাহিল আলম ইদ্রিসের নেতৃত্বে ২৫/৩০ জনের একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী স্থানীয় আওয়ামীলীগ অফিসে বোমা নিক্ষেপ করে। এ ছাড়া আগ্নোয়াস্ত্র চাপাতি টাঙ্গি চাইনিজ কুড়ালসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আয়োজকদের উপর হামলা করে।

এ সময় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও সাদীপুর ইউপি মেম্বর জহুরুল ইসলাম (৪৫), আরিফ (২৫), শরীফসহ ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও সাদীপুর ইউপি মেম্বর জহুরুল ইসলাম (৪৫) এর অবস্থা আশংকাজনক। তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের পাবনা জেনারেল হাসপাতালসহ কয়েকটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

বাংলাবাজার এলাকার হাউসিপাড়ার ফকির প্রামানিকের ছেলে মো. আব্দুল খালেক বলেন, জামায়াত বিএনপি পরিবারের সন্তান স্থানীয় একজন নানা অপকর্ম করছে। তার নেতৃত্বে এলাকায় মাদকব্যবসা, পদ্মা নদী থেকে বালির ব্যবসা নিয়ন্ত্রণসহ নানা অরাজকতা শুরু করেছে। তারাই মঙ্গলবার রাতে হাউসিপাড়ায় আওয়ামীলীগের অস্থায়ী অফিসে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে হামলা করেছে।

পাবনা সদর থানার ওসি মো. নাছিম আহমেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে লঞ্চঘাট এলকার ইকতারের ছেলে সুমন হোসেন (২৫) ও এবং জুয়েল শেখের ছেলে রনি শেখ (২৩), বাংলাবাজার এলাকার হাসেন মৃধার ছেলে রিপন হোসেন (২৪) কে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। মামলার প্রধান আসামীসহ অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *