পাবনার সাঁথিয়ায় নিজ ভাগ্নেকে অপহরণ করে ৩০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি

সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিনিধিঃ পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার মোবাইল ব্যবসায়ী ও বিষ্ণুপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে এসএম নাইম আহম্মদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোম্পানীর প্রায় ১ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ। নিজ ভাগ্নেকে অপহরণ করে ৩০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি। সাদা স্টাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে ৫৭ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করলেন অপহৃত ভাগ্নের বিরুদ্ধে।

পাবনা সদর থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মোবাইল ব্যবসায়ী নাইম আহম্মদ বিভিন্ন সময় ব্যবসায়ী কাজে অর্থ সংকটে পড়লে দোকানের সেলসম্যান নিজ ভাগ্নের পরিবারের নিকট থেকে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা দার করে। দারের টাকা চাইলে গত ৩০ জুন সন্ধ্যায় পাবনা থেকে ভাগ্নে রুবেল শেখ (২০) কে মামা নাইম ভারাটিয়া সন্ত্রাসী দ্বারা অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে ৩০ লক্ষ টাকার দাবি করে।

গত ২ জুলাই দুপুরে রুবেলের মা সুফিয়া খাতুন বাদী হয়ে ভাইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে সদর থানা পুলিশ অপহৃত রুবেল কে সদর উপজেলার গয়েশপুর নির্মনাধীন তিনতলা ভবন থেকে উদ্ধার ও আসামী নাইমকে আটক করে। থানায় নিয়ে আসলে রুবেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছিম হোসেনকে জানান, মামা নিজে ও ভারাটিয়া সন্ত্রাসীরা তাকে মেরে এবং অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে সাদা স্টাম্পে স্বাক্ষর ও মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়।

ওসি মামলার প্রস্তুতি নিলে ভাই নাইমের বিরুদ্ধে বোন সুফিয়া মামলা করতে রাজি না হওয়ায় পুলিশ মুচলেকা নিয়ে অপহৃতকে মায়ের নিকট তুলে দেয়।

এদিকে গত ৫ জুলাই স্বাক্ষর রাখা সাদা স্টাম্পে ভাগ্নে রুবেলের ৫৭ লক্ষ টাকার স্বীকারোক্তি জবানবন্ধী লেখে সাঁথিয়া থানায় একটি অভিযোগ করেন মামা নাইম।

অপর দিকে অভিযোগ রয়েছে নাইম আহম্মদের বিরুদ্ধে প্রায় ১ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেন ম্যাক্সিমাস মোবাইল কোম্পানীর চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম।

তিনি জানান, আমার সাথে ব্যবসায়ী সম্পর্কে ৩ লক্ষ ২০ হাজ্রা টাকা বাকী নেয়। বাঁকী টাকা চাইলে প্রথমে সময় ক্ষেপণ করে। একখন সে আমার ফোন ধরে না। দোকানে লোক পাঠালে পাওয়া যায় না। তিনি জানান দেশের প্রায় প্রতিটি মোবাইল কোম্পানী নাইমের নিকট প্রায় ১ কোটি টাকা পায়।

এছাড়াও কাশিনাথ বাজারের জিম ইলেক্টনিকের মালিকের সাথে মোবাইলে ব্যবসায়ী কাজে নাইম একটি সাদা চেক গ্রহণ করেন। কয়েক মাস পরে ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা পাবে মর্মে উকিল নোটিশ পাঠান জিম ইলেক্টনিসসের মালিকের কাছে। পরে বিষয়টি সমযথা হয়।

এছাড়াও নাইমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে।

সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, নিজ মামা ভাগ্নের সাথে জটিলতা। যেহেতু ঘটনা সাঁথিয়ায় না, সেহেতু ঘটনার স্থান নিয়ে জটিলতা রয়েছে। তার পরেও অভিযোগ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *