লালপুরে সাবেক চেয়ারম্যানের ভাইয়ের বিরুদ্ধে সরকারী গাছ বিক্রির অভিযোগ

লালপুর প্রতিনিধি: সাব্বীর আহম্মেদ মিঠু

নাটোরের লালপুর উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের আট্টিকা-গন্ডবিল রাস্তার সরকারী শিশু ও জাম গাছ বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে গাছ দুটির ক্রেতা রুলু কে থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে গেছে। বিক্রেতা আব্দুল মান্নান মটর ঘটনাস্থল থেকে পালিয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের আট্টিকা-গন্ডবিল সড়কে জেলা পরিষদের রোপনকৃত ২টি শিশু ও জাম গাছ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আট্টিকা গ্রামের আজিজুল আলম মক্কেল মাস্টারের ভাই আব্দুল মান্নান ওরফে মটর বিক্রি করে। ক্রেতাকে সাথে নিয়ে আজ শুক্রবার (১৯ জুন) দুপুরে গাছ কাটার চেষ্টা কালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। এ সময় সরকারী গাছ কাটার বিষয়টি পুলিশ নিশ্চিত হলে পাইকপাড়া গ্রামের খোরশেদ আলীর ছেলে রুলু কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায়।
লালপুর থানা ওসি সেলিম রেজা জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা ব্যক্তিকে রাস্তা পার্শ্ববর্তী জমির মালিক আব্দুল মান্নান মটর গাছ কাটার অনুমতি দেওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
তবে মুলহোতা আব্দুল মান্নান মটরের ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে চান নি ওসি।
সরকারী রাস্তায় গাছ লাগালে বা প্রাকৃতিক ভাবে গাছ জন্মালে উক্ত গাছের মালিক কে হবেন জানতে চাইলে লালপুর উপজেলা বন কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম জানান, সরকারী রাস্তার জমিতে যে ভাবেই গাছ জন্মাক, সে গাছের মালিক সরকার। কোন জমির মালিক বা কোন ব্যক্তি উক্ত গাছ সরকারী নির্দেশ ব্যতিরেখে গাছ কাটতে পারবে না।
এ ব্যাপারে লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মুল বানীন দ্যুতি জানান, সরকারী রাস্তার গাছ সরকারী নির্দেশনা ছাড়া কাটা বা বিক্রি করার অধিকার কারো নেই। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একজনকে থানায় নিয়ে এসে, ছেড়ে দিয়েছে জেনেছি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি, অবশ্যই আইনের উর্ধ্বে কেউ নন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *