লালপুরে ৩৮ তম বিসিএসে ক্যাডার পদে সুপারিশ প্রাপ্ত ৫ জন

সাব্বির আহমেদ মিঠু:
নাটোরের লালপুর উপজেলাতে ৩৮ তম বিসিএসে এক নারী সহ মোট পাঁচ জন ক্যাডার পদে সুপারিশ প্রাপ্ত হয়েছেন।

এরা হলেন উপজেলার দুড়দুড়িয়া গ্রামের মহাদেব চন্দ্র পালের ছেলে শৈলেন কুমার পাল কৃষি ক্যাডারে, বেরিলাবাড়ি গ্রামের ওসমান গনির মেয়ে অারজিনা খাতুন পুলিশ ক্যাডারে, বিদিরপুর গ্রামের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম খানের ছেলে মেশকাত খান সেলিম শিক্ষা (অাইসিটি) ক্যাডারে, দেলুয়া গ্রামের মোঃ অামজাদ হোসেনের ছেলে সুজাউদ্দীন অাহমেদ চিকিৎসা ক্যাডারে ও পাটিকাবাড়ি গ্রামের অাহমদ অালীর ছেলে মোঃ জমিন উদ্দীন শিক্ষা (হিসাববিজ্ঞান) ক্যাডারে সুপারিশ প্রাপ্ত।

সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পদে সুপারিশ প্রাপ্ত অারজিনা খাতুন উপজেলার চণ্ডিপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও রাজশাহীর নিউ গভঃ ডিগ্রি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন। পরে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা পদে সুপারিশ প্রাপ্ত শৈলেন পাল উপজেলার দাদপুর গড়গড়ি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাসের পর উচ্চমাধ্যমিক পড়েছেন দুড়দুড়িয়া মহাবিদ্যালয়ে। পরে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন।

সহকারী ডেন্টাল সার্জন পদে সুপারিশ প্রাপ্ত সুজাউদ্দীন উপজেলার করিমপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক, অাব্দুলপুর সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ থেকে বিডিএস পাশ করেন।

সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশ প্রাপ্ত মোঃ জমিন উদ্দীন উপজেলার বেলায়েত খান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন। এবং পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ থেকে বিবিএ অনার্স, মাস্টার্স ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন।

তারা প্রত্যেকে দেশের ও দেশের মানুষের উন্নয়নে পাশে থেকে কাজ করতে চাই এবং সরকারি চাকরিতে যোগ দিয়ে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে দৃঢ়প্রত্যোয়ী বলে জানান। এছাড়া এখনো তুলনামূলক পিছিয়ে পড়া লালপুর জনপদের উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *