বিয়ে করলেন র‌্যাবের গুলিতে পা হারানো সেই লিমন

কথিত বন্দুকযুদ্ধে র‌্যাবের গুলিতে এক পা হারানো ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামের সেই লিমন হোসেন (২৮) বিয়ে করেছেন। কনে যশোর জেলার অভয়নগর উপজেলার নওপাড়ার সরখোলা গ্রামের টিটু মোল্লার মেয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী রাবেয়া বশরী।

নওয়াপাড়া পৌরসভার সরখোলা গ্রামে কনের বাড়িতেই শুক্রবার দুপুরে তাদের বিয়ে রেজিস্ট্রি হয়। দুই লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে পড়ান স্থানীয় কাজী মাওলানা মো. নজরুল ইসলাম। এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে লিমনের গ্রামের বাড়িতে গায়েহলুদ অনুষ্ঠিত হয়। এতে লিমনের পরিবার, সহপাঠী ও আত্মীয়স্বজন অংশ নেন।

লিমন হোসেন জানান, পরিবারের ইচ্ছায় বাবা-মায়ের পছন্দের মেয়েকে বিয়ে করে এবার জীবনে আরেকধাপ এগিয়ে যেতে চান তিনি।

লিমনের স্ত্রী রাবেয়া বশরী জানান, লিমন প্রতিকূল পরিবেশের সঙ্গে যুদ্ধ করে ক্যারিয়ার গড়ে তুলেছেন। তার সব কিছু শুনে আমার ভালো লেগেছে। দাম্পত্য জীবনেও তিনি দায়িত্বশীল হবেন। এটা বুঝেই আমি বিয়েতে রাজি হয়েছি।

১০ বছর আগে ২০১১ সালের ২৩ মার্চ র‌্যাবের গুলিতে পা হারান ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামের দরিদ্র পরিবারের সন্তান লিমন হোসেন। ওই বছর এইচএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল তার। ১৭ বছরের সেই কিশোর এখন ২৮ বছরের যুবক। ঘটনাটি দেশজুড়ে আলোচিত হয়, প্রশ্নবিদ্ধ হয় র‌্যাবের  অভিযান। ঝালকাঠির সাতুরিয়া গ্রামের পা হারানো সেই কিশোর এখন সাভার গণবিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগের প্রভাষক। বিয়ে করে এখন তিনি সংসার জীবন শুরু করতে যাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *