পাবনায় গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

পাবনার সাঁথিয়ায় রিক্তা খাতুন নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ বাথরুমে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামী ও ছেলের বিরুদ্ধে। নিহত রিক্তা খাতুন কাশিনাথপুর ইউনিয়ন শগুইনা পশ্চিমপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর প্রামানিকের স্ত্রী ও আমিনপুর থানার নয়াবাড়ি গ্রামের মোবুদ্ধি শিকদারের মেয়ে

রোববার (২৩ জুন) উপজেলার কাশিনাথপুর শগুইনা গ্রামে রহস্যজনক এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছে নিহত রিক্তার স্বামী ও ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রিক্তাকে প্রায়ই শারীরিক নির্যাঅন করতো তার স্বামী জাহাঙ্গীর এবং মাদকাসক্ত ছেলে দুরন্ত। মূলত মাদকের টাকার জন্যই তাকে নির্যাতন করা হতো। মারধরের শিকার হয়ে মেয়েটি অনেকবার বাবার বাড়ি চলে গিয়েছে। পরে স্বামী গিয়ে আবার নিয়ে আসতো। রোববার দুপুরের দিকে প্রতিবেশি একজন বাথরুমের মধ্যে অস্বাভাবিক কিছু বুঝতে পেরে এসে দেখে রিক্তার লাশ ঝুলছে। তখন তিনি আত্মীয় স্বজনকে খবর দেন। তার স্বামী ও ছেলে পলাতক।

নিহত রিক্তা খাতুনের বড় বোনের মেয়ে আনোয়ারা খাতুন দুলির অভিযোগ, রিক্তার ছেলে মাদকাসক্ত ছিল। মাদকের জন্য টাকা চাইত। না দিলে বাবা ও ছেলে মিলে তাকে বেধড়ক মারপিট করত। ফোনে একাধিকবার রিক্তা জানিয়েছিলেন, বাপ-ছেলে মিলে তাকে মেরে ফেলতে পারে। নিহতের বাবা মোবুদ্ধি শিকদার বলেন, তার মেয়েকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, নিহতের স্বামী ও ছেলেসহ পুরো পরিবার নেশাগ্রস্ত। মরদেহ থানায় নেওয়ার হয়েছে।  তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।